চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

চমেকে ব্যাথা নিরাময়ে ফ্রি আলট্রাসনোগ্রাফি !

প্রকাশ: ২০১৭-০৮-২৪ ১১:০২:১৮ || আপডেট: ২০১৭-০৮-২৪ ১৫:৪২:৪০

নয় হাজার টাকার এমআরআইয়ের বদলে কম খরচের আলট্রাসনোগ্রাফির সাহায্যেই তীব্র ব্যাথানাশক ইঞ্জেকশন দেওয়ার ইন্টারভেনশনাল পেইন ম্যানেজমেন্ট চালু হয়েছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগ। মেরুদন্ড, ঘাড়, কাঁধ, হাঁটু, কোমর, জয়েন্ট, নার্ভ পেইনের রোগীদের পরীক্ষামূলকভাবে এ সেবা দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যে।

রোববার ও বৃহস্পতিবার মেরুদন্ড, ঘাড়, কাঁধ, হাঁটু, কোমর, জয়েন্ট, নার্ভ পেইনের রোগীদের পরীক্ষামূলকভাবে এ সেবা দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যে। ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগকে (২ নম্বর ওয়ার্ড)। ৩০ লাখ টাকা দামের একটি পোর্টেবল আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন।

রোববার ও বৃহস্পতিবার মেরুদন্ড, ঘাড়, কাঁধ, হাঁটু, কোমর, জয়েন্ট, নার্ভ পেইনের রোগীদের পরীক্ষামূলকভাবে এ সেবা দেওয়া হচ্ছে বিনামূল্যে। জনহিতকর এ উদ্যোগে মুখ্য ভূমিকা রেখেছেন বাত-ব্যথা ও প্যারালাইসিস বিশেষজ্ঞ ডা. মো. মঈন উদ্দীন। ৩০ লাখ টাকা দামের একটি পোর্টেবল আলট্রাসনোগ্রাফি মেশিন দেওয়া হয়েছে ফিজিক্যাল মেডিসিন বিভাগকে।

ডা. মঈন উদ্দীন বলেন, সচরাচর কারপাল টানেল সিনড্রম, ফ্রোজেন সোল্ডার, পিএলআইডি, মাথাব্যথা, সায়াটিকা (নার্ভের পেইন), স্পোর্টস ইনজুরির জন্য এমআরআই করাতে হতো। বিশেষ করে ১৬ জয়েন্ট, হাঁটুর জয়েন্টে ব্যথার জন্য এমআরআই দিত। একেকটি এমআরআইতে খরচ পড়ে নয় হাজার টাকা।

তিনি বলেন, আগে আলট্রাসনোগ্রাফি হতো পেটের আর বুকের। আমরা জয়েন্টেও আলট্রাসনোগ্রাফি করছি।

ফিজিক্যাল মেডিসিন ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান শওকত হোসেন বলেন, আলট্রাসনোগ্রাফির সাহায্যে ব্যথার জায়গায় আমরা ওষুধ পৌঁছে দিচ্ছি এ পদ্ধতিতে। আলট্রাসনোগ্রাফিতে রেডিয়েশনের ঝুঁকি নেই। খরচও কম। এখনো আমরা পরীক্ষামূলকভাবে বিনামূল্যে রোগীদের এ সেবা দিচ্ছি। শিগগির হয়তো এ সেবার জন্য ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা ফি ধার্য করা হবে বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ