চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

রামগড়ে থামছেনা ডাকাতের আতংক; ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসীর রাত জেগে পাহারা

প্রকাশ: ২০১৭-১০-০৮ ১১:২৬:৩৯ || আপডেট: ২০১৭-১০-০৮ ১১:২৬:৩৯

করিম শাহ
রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি

জেলার রামগড় পৌরসভা ও সদর ইউনিয়নের কয়েকটি এলাকায় থামছেনা ডাকাতির আতংক। ডাকাতের ভয়ে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিনীদ্র রাত কাটাচ্ছেন। সপ্তাহব্যাপি কয়েকটি বাড়িতে ডাকাতি ও ডাকাতি চেষ্টার ঘটনার কোন কুল কিনারা না হওয়ায় প্রশাসনের প্রতি সাধারণ মানুষের বিশ^াসের ভিত নড়ে যাচ্ছে। রাতভর গ্রামবাসির পাহারা ও পুলিশের অতিরিক্ত টহলের সত্তেও গ্রামে গ্রামে ডাকাত আতংক বৃদ্ধি পাওয়ায় মানুষের মাঝে ক্ষোভ সৃষ্টি হচ্ছে। প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দর যৌথ তৎপরতারই এ ঘটনার সফল সমাপ্তি হবে মনে করছেন সচেতন মহল। তাঁদের প্রশ্ন এসব কি ডাকাতি নাকি বিশেষ কোন মহলের উদ্দেশ্য বাস্থবায়নের চেষ্টা?। গত ৬ অক্টোবর লামকুপাড়া একটি বাড়িতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে জনগণ ধাওয়া করে এসময় একটি মোবাইল পাওয়া যায়। এটি বর্তমানের পুলিশের হাতে জব্দ রয়েছে। পুলিশ বলছে উদ্ধারকৃত মোবাইলের সূত্রধরে ঘটনার গভীরে যাওয়ার চেষ্টা চলছে।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে গতকাল ৭ অক্টোবর পর্যন্ত পৌরসভার সদুকার্বারীপাড়া, হাজিপাড়া, ফেনীরকুল, সদর ইউনিয়নের বলিপাড়া, লামকুপাড়া ও নোয়াপাড়া এলাকায় ৩টি বাড়িতে ডাকাতি ও ৭টি বাড়িতে ডাকাতি চেষ্টার ঘটনা ঘটে। দেশিয় অস্ত্র সজ্জিত ডাকাতদল অন্ত্রের মুখে ও শিশু সন্তানদের জিম্মি করে নগদ টাকা স্বার্ণালংকার লুট করে নিচ্ছে। তাছাড়া একটি বাড়িতে অশ্লিলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ক্ষতিগ্রস্থদের সূত্রমতে, শনিবার (৭ অক্টোবর) সাড়ে ৮টার সময় পৌরসভার ফেনীরকুল এলাকার কালাম চৌধুরী ও তাঁর শ^শুর কাদের কেরানীর বাড়ির দরজা ও জানালায় আঘাত করে ঘরে ঢুকার চেষ্টা করে। দ্রুত গ্রামে ডাকাতের হামলা খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামবাসি এলাকটি ঘেরাও করার আগেই ডাকাত দল গাঁঢাকা গেয়। একই সময় পাশ^বর্তী চিকনেরখিল আমতলী ও খাগড়াবিলের নোয়াপাড়া এলাকায় ডাকাত দলের উপস্থিতির খবর পাওয়া গেছে। এর আগে গত শুক্রবার রাত ১২টার সময় লামকু পাড়া একটি বাড়িতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে এলাকাবাসী ধাওয়া দিলে ডাকাত দল পালিয়ে যায় তবে একটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়ছে। একই দিন হাজিপাড়া ও বাগানটিলা ২টি বাড়িতে ডাকাতি চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া ২৭ সেপ্টেম্বর হাজিপাড়া তোফয়েলের বাড়ি ও সুদকার্বারীপাড়া আবুল কালমের বাড়িতে ও ২ অক্টোবর ফেনীরকুল ফেরদৌসের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে এসময় ডাকাতরা নগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।

আবুল কালাম ও ফেসদৌর জানান, ডাকাত দল প্রথমে কৌশলে দরজার ফিতকারী ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে ধারালো চাপাতি, চাকু, সুরী ও লোহার রড দেশীয় অন্ত্রের মুখে সবাইকে জিম্মি করে হাত, পা, চোখ বেঁধে মারপিট করে স্বর্ণালঙ্কার ও নদগ টাকা নিয়ে যায়। কোথাও কোথাও ঘরের শিশু সন্তাদের জিম্মি করে ডাকাতি করছে। প্রত্যক্ষদর্শী আলাম ও তানিয়া জানান, প্রায় ১৫-২০ জনের একটি দল প্রত্যেকে সট পেন্ট ও কালো পোশাক পরা। তবে কোথাও কোথায় ঘরের দরজা ও জানালায় আগাত করে আতংকৃত সৃষ্টি করছে ডাকাতদল।

রামগড় থানা অফিসার ইনচার্জ শরিফুল ইসলাম জানান, যেখানে ডাকাতদরে উপস্থিতির অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে সাথে সাথে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে। ভিকটিমদের বাড়িতে গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছি। তাছাড়া পুলিশ রাতভর সন্দেহ জনক স্থানে ব্যক্তি ও যানবাহন তল্লাশি করছে ও টহল বৃদ্ধি করা হয়েছে। পুলিশের অভিযান ও তদন্ত অব্যহত রয়েছে যথা শিগ্রই একটি ফলপ্রসু সমাধান হবে বলে তিনি জানান। তবে তিনি এলাকাবাসী ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগীতা কমনা করেছেন।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ