চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মিরসরাইয়ে আদিবাসী পাড়ায় বিশুদ্ধ পানির জন্য সংগ্রাম

প্রকাশ: ২০১৭-১১-১৪ ১০:৩৯:৫৮ || আপডেট: ২০১৭-১১-১৪ ১০:৩৯:৫৮

এম মাঈন উদ্দিন
মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

শীতে মিরসরাইয়ে পাহাড়ী অঞ্চলে দেখা দেয় চরম পানি সংকট। কারণ শীত এলে তাদের খনন করা কুয়ার পানি শুকিয়ে যায়। এতে করে বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়ে তারা। ফলে বালি ও ময়লাযুক্ত ছরার পানি খেয়ে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয় আদিবাসীরা। নারীরা অনেক সংগ্রাম করে ছরা থেকে পানি সংগ্রহ করে। তবে এই বছর তারা একটু বেশি আতংকে আছেন।

কারণ কয়েক গত মাস মিরসরাইয়ের পার্শবর্তি উপজেলা সীতাকুন্ডের আদিবাসী পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে শিশুর মৃত্যু ও অসংখ্য নারী পুরুষ অসুস্থ হয়ে পড়ায় এখানকার আদিবাসী পাড়ার মানুষ আতংকিত হয়ে পড়েছে। প্রায় ৫ বছর আগে উপজেলার দুটি আদিবাসী পাড়ায় এনজিও সংস্থা অপকা ৪টি নলকূপ স্থাপন করে। কিন্তু নলকূপগুলো বেশি দিন টেকেনি। মেরামতের অভাবে নলকূপগুলো নষ্ট হয়ে গেছে।

জানা গেছে, মিরসরাইয়ের আদিবাসী পাড়ায় খাওয়া পানির সরবরাহে নিজ উদ্যোগে কূয়া খনন করে থাকে। কূয়া পানি আদিবাসীরা খাওয়া কাজে ব্যবহার করে। আর গোসলসহ বিভিন্ন কাজে ছরার পানি ব্যবহার করে তারা। কিন্তু শীত মৌসুম এলে খনন করা কূয়ার পানি কমে যায়। ফলে তারা বাধ্য হয়ে ছরার ময়লাযুক্ত পানি ব্যবহার করে। এতে করে বিভিন্ন রকম রোগে আক্রান্ত হয় তারা।

উপজেলার খৈয়াছরা, তালবাড়িয়া, ওয়াহেদপুর, করেরহাটের বেশ কয়েকটি গ্রামে এই পানির সংকট বিরাজমান।

উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের সাইবেনীখিল আদিবাসী পাড়ায় কমল কুমার ত্রিপুরা জানান, শীতকালে তাদের এলাকায় বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দেয়। কুয়ার পানি শুকিয়ে গেলে তারা পাড়ার নারী পুরুষরা পানি সংকটে বাধ্য হয়ে ছরার পানি পান করেন। সরকার যদি আদিবাসী পাড়ায় কয়েকটি গভীর নলকূপ স্থাপন করে তাহলে বিশুদ্ধ পানির সংকট থেকে মুক্তি পাবে।

সাইবেনীখিল প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি উষা ত্রিপুরা জানান, শীত এলে বিশুদ্ধ পানির সংকটে পড়ে আদিবাসী পাড়ার লোকজন। তাদের পাড়ায় প্রায় ৮০টি আদিবাসী পাড়া রয়েছে। কিন্তু কূয়া রয়েছে মাত্র কয়েকটি। তাছাড়া শীত এলেই কূয়ার পানি শুকিয়ে যায়। ফলে সরকারের উচিত আদিবাসী পাড়ায় কয়েকটি গভীর নলকূপ স্থাপন করা।

উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলি কেএম সাঈদ মাহমুদ জানান, যদি আদিবাসীরা নলকূপ চেয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা বরাবর চিঠি দেয় তবে নলকূপ স্থাপনের উদ্যোগ নেয়া যেতে পারে।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ