চট্টগ্রাম, , সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

‘মুক্তিযুদ্ধ ছিল জনযুদ্ধ’

প্রকাশ: ২০১৭-১২-১১ ২০:৪০:০৩ || আপডেট: ২০১৭-১২-১২ ১৩:৪৭:০৫

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেছেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ ছিল জনযুদ্ধ। হাতে গোনা রাজাকার, আল বদর, আল শামস ছাড়া এদেশের আপামর মানুষ মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। এক দিনে মুক্তিযুদ্ধ সংঘটিত হয়নি।’

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে শহীদ স্বপন কুমার চৌধুরী স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘মাঝে মাঝে আমরা শঙ্কিত হই, ইতিহাস মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র দেখে। কিন্তু ইতিহাস আপন গতিতে চলে। খলনায়করা ঘৃণার পাত্রে পরিণত হয়।ইতিহাস বিকৃতকারীরা আস্তাকুঁড়ে নিক্ষিপ্ত হয়। স্বাধীনতার ঘোষণা নিয়ে যারা ষড়যন্ত্র করেছে, ঘোষক সাজিয়েছে সেটা ইতিহাস গ্রহণ করেনি।’

শহীদ স্বপন কুমার চৌধুরী স্মৃতি সংরক্ষণ কমিটি, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ও জেলা ইউনিট কমান্ড এ সভার আয়োজন করে।

ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ বার বার একটি জাতির ইতিহাসে আসে না। যারা যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন, ঐতিহাসিক দায়িত্ব পালন করেছেন তাদের গর্ব হওয়াটা স্বাভাবিক। রাজাকারদের আস্ফালনে মুক্তিযোদ্ধারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন, প্রতিবাদ প্রতিরোধে ঝাঁপিয়ে পড়েন। একে একে চলে যাচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধারা। কিন্তু তাদের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস থেকে যাচ্ছে।’

মুক্তিযুদ্ধের গবেষক ডা. মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘স্বপনদার সঙ্গে পরিচয় ঢাকায়। তিনি আমাদের আপ্যায়ন করতেন। ভারতে স্বপনদার বিচরণ ছিল। তিনি স্বাধীন বাংলাদেশের প্রস্তাবক। নগরীর শহীদ মিনার সংলগ্ন পার্কটি শহীদ স্বপন পার্ক নামকরণের প্রস্তাব করছি।’

জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো. শাহাবউদ্দিন বলেন, ‘স্বপন চৌধুরী মেধাবী ছাত্রনেতা ছিলেন। তিনি কোনও কর্মীকে তুমি বলতেন না, আপনি বলতেন। নারীদের সম্মান করতেন। তিনি বেঁচে থাকলে সাতকানিয়া রাজাকারের ঘাঁটি হতো না।’

তিনি বলেন, ‘অনেক মুক্তিযোদ্ধা কোটি টাকার মালিক। বড় পদে আছেন। কিন্তু মুক্তিযোদ্ধারা গরীব, দুস্থ মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে দাঁড়ান না। যুদ্ধ শেষ। মুক্তিযোদ্ধাদের দায়িত্ব শেষ নয়, বরং দায়িত্ব আরও বেশি।’

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ