চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বান্দরবানে রাজপূন্যাহ শুরু

প্রকাশ: ২০১৭-১২-২১ ১৬:৫৫:৫৪ || আপডেট: ২০১৭-১২-২১ ১৮:১৯:৫২

এস.এম ইসমাইল হাসান
বান্দরবান থেকে

বান্দরবানে শুরু হয়েছে বোমাং সার্কেলের ঐতিহ্যবাহি জুমিয়া খাজনা আদায়ের উৎসব ১৪০ তম বোমাং রাজপূন্যাহ।

রাজপূন্যাহ উপলক্ষে বোমাং সার্কেলের ৩৭ তম রাজা প্রকৌশলী উচপ্রু বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজবাড়ী থেকে ঐতিহ্যবাহি পোষাকে পাইক-পেয়াদা, উজির-নাজির ও দূর দুরান্ত থেকে আসা প্রজাদের সাথে নিয়ে শোভাযাত্রার মাধ্যমে পুরাতন রাজাবাড়ীর মূল অনুষ্ঠানস্থলে যোগ দেন। এসময় সড়কের দুপাশে দাঁড়িয়ে রাজাকে শ্রদ্ধা জানান বিভিন্ন সম্প্রদায়ের নারী পুরুষ।

শোভাযাত্রায় রাজা বাহাদুরের সাথে অংশ নেন সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি, অর্থ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. আবদুর রাজ্জাক, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি, চট্টগ্রাম সেনা রিজিয়নের জিওসি মেজর জেনারেল জাহাঙ্গীর কবির, বান্দরবান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, সেনা রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জুবায়ের সালেহীন, জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়সহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারী দফতরের প্রধানগণ।

শোভাযাত্রা শেষে রাজার সাথে সকল অতিথিরা অংশ নেন পার্বত্য বান্দরবানের জুমিয়াদের ঐতিহ্যবাহি জুম খাজনা আদায়ের অনুষ্ঠানে। এসময় সৌজন্য বক্তব্য রাখেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিরা।

এসময় বোমাং সার্কেলের ১০৯ টি মৌজার হেডম্যানরা (মৌজা প্রধান) প্রজাদের কাছ থেকে আদায় করা বাৎসরিক খাজনা ও ঐতিহ্যবাহি উপহার রাজার হাতে তুলে দেন। খাজনা আদায় চলবে আগামি ২৩ তারিখ পর্যন্ত।

এদিকে রাজপূন্যাহ অনুষ্ঠানকে ঘিরে শহরের রাজার মাঠে বসেছে তিন দিনব্যাপী লোকজ মেলা। মেলায় মৃত্যুকুপ, বিচিত্রানুষ্ঠান, যাত্রাপালা, পুতুল নাচসহ বিভিন্ন আয়োজন থাকছে। এসব অনুষ্ঠান দেখতে জেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে জুমিয়া নারী পুরুষ ভিড় করেছে শহরে। মেলা চলবে ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ