চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

উপজেলায় ডাক্তার না থাকলে চাকরিচ্যূতি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ২০১৭-১২-২৮ ১২:০৮:১৪ || আপডেট: ২০১৭-১২-২৮ ১৬:৫৬:২৯

জেলা বা উপজেলা হাসপাতালে নিয়োগ পেয়ে যেসব চিকিৎসক সেখানে যান না, তাদেরকে আর সুযোগ না দিয়ে চাকরিচ্যুত করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সরকারি হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ অনুষ্ঠানে এই হুঁশিয়ারি দেন প্রধানমন্ত্রী। একই অনুষ্ঠানে সরকারি অ্যাম্বুলেন্স নষ্ট হয়ে গেলে বরাদ্দের জন্য অপেক্ষা না করে তাৎক্ষণিকভাবে মেরামতের জন্য একটি তহবিল করার নির্দেশও দেন শেখ হাসিনা।

গত এক দশকে দেশে সরকারি স্বাস্থ্যসেবার উন্নতি হলেও চিকিৎসকদের মফস্বল শহর বা উপজেলা এবং গ্রাম এলাকায় না থাকার প্রবণতা রোধ করা যায়নি। বিশেষ করে দূর গ্রামের হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসকশূন্য অবস্থায় পড়ে থাকে। এমন অভিযোগও আছে, বেতন হওয়ার আগে এলাকায় গিয়ে উপস্থিতি খাতায় সই করে আসেন তারা।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম একাধিকবার হুঁশিয়ারি দিলেও চিকিৎসকদের আচরণে পরিবর্তন আনতে পারেননি।

এবার খোদ প্রধানমন্ত্রী এই বিষয়ে বিরক্তি প্রকাশ করলেন। বললেন, সরকারি চাকরি যদি কারও ভালো না লাগে, তাহলে তা ছেড়ে ঢাকায় বসে প্রাইভেট প্র্যাকটিস করতে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যে ডাক্তারকে আমরা নিয়োগ দিচ্ছি, যেই আমরা পাঠাচ্ছি উপজেলায়, সেখানে না থেকেই… সরকারি চাকরি হলেই এই সমস্যাটা হয়। যেই আমরা নিয়োগ দিচ্ছি, যে কোনোভাবে কায়দা করে ঢাকায় এসে বসে থাকে।’

‘এভাবে যদি কেউ চলে আসে তাহলে তার তো চাকরি করার দরকার নাই। ঢাকায় বসে প্রাইভেট প্র্যাকটিস করলেই তো অনেক টাকা পাবে। তাহলে তারা বাড়ি চলে যাক, আমরা নিয়োগ দেবো।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এখন অনেক প্রাইভেট ক্লিনিক আছে, তাতে কোথাও যদি তারা চাকরি পেয়ে যায়, তাহলে খুব ভালো কথা, ট্রেইনিং দিয়ে আমরা নতুন নিয়োগ দেবো।’

‘কারণ প্রতিনিয়ত ছেলেমেয়েরা লেখাপড়া শিখে চাকরি খুঁজে বেড়াচ্ছে। তাদেরকে আমার ওখানে দেবো, কিছু ট্রেইনিং করবে, কিছু সার্ভিস দেবে, আরেক জায়গায় যাবে, এটা কোনো বিষয়ই না, এটা নিয়ে মনে হয় এতটা মাথা ঘামানোর প্রয়োজনও নাই।’

One Reply to “উপজেলায় ডাক্তার না থাকলে চাকরিচ্যূতি: প্রধানমন্ত্রী”

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ