চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

২২ জানুয়ারির মধ্যে ফিরবে এক লাখ রোহিঙ্গা: কাদের

প্রকাশ: ২০১৭-১২-২৯ ১৮:৩৪:২৭ || আপডেট: ২০১৭-১২-২৯ ২২:৩৫:২১

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে আসা রোহিঙ্গাদেরকে ফিরিয়ে দেয়ার প্রক্রিয়া কবে থেকে শুরু করে-এমন জিজ্ঞাসার মধ্যে একটি তারিখ জানিয়েছেন একজন মন্ত্রী। ২২ জানুয়ারির মধ্যেই এক লাখ রোহিঙ্গা নিজ দেশে ফিরে যাবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

রোহিঙ্গাদেরকে ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে চুক্তি এবং এ বিষয়ে প্রক্রিয়া নির্ধারণে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের পরও কবে নাগাদ এই প্রক্রিয়া শুরু হবে, সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।

তবে শুক্রবার কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে সড়কমন্ত্রী জানান, ২২ জানুয়ারির মধ্যে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং এক নম¦র ব্লকে রোহিঙ্গাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করছিলেন মন্ত্রী। এরপর গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

৮০ দশক থেকেই নানা সময় রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসছে। তাদের আশ্রয় হয়েছে কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে। তবে সবচেয়ে বেশি রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটছে গত অক্টোবর থেকে। সে সময় থেকে এখন পর্যন্ত সাড়ে ছয় লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে বলে জানান সড়ক মন্ত্রী। এর আগের শরণার্থী মিলিয়ে দেশে এখন রোহিঙ্গার সংখ্যা ১২ লাখ বলে জানান ওবায়দুল কাদের।

বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদেরকে ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে গত ২৩ নভেম্বর মিয়ানমারের রাজধানী নেপিডোতে সে দেশের সরকারের সঙ্গে বাংলাদেশের একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়। ওই স্মারকে এই প্রত্যাবাসনের কাজ করতে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের সিদ্ধান্ত হয় এবং গত ১৯ ডিসেম্বর সে গ্রুপ গঠন হয়। দুই দেশের পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে দুই দেশের ১৫ জন করে ৩০ জন কর্মকর্তা এই গ্রুপে আছেন। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন কোন প্রক্রিয়ায় হবে, সেটি এই গ্রুপেরই নির্ধারণ করার কথা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা মনে করি রোহিঙ্গারা সম্মানের সহিত মিয়ানমারে ফেরত যাবে। এজন্য প্রত্যাবাসন চুক্তি ও ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করা হয়েছে। শেখ হাসিনার সরকার দ্রুত রোহিঙ্গাদের নিরাপদে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাবে।’

সড়ক মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দিয়েছেন, এখনও অব্যাহত রেখেছেন। যে কারণে বিশ্ব সম্প্রদায়ের কাছে বাংলাদেশ প্রশংসিত হয়েছে। আর ফিরে যাওয়ার আগ পর্যন্ত এই সহায়তা চালু থাকবে।

সাবেক শিল্পমন্ত্রী দীলিপ বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি, সংসক সদস্য আশেক উল্লাহ ফারুখ, সাবেক সংসদ সদস্য মোহামদ আলী, কক্সবাজার আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, উখিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীসহ বিপুল নেতা কর্মী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এরপর উখিয়া সদর পাতাবাড়িতে বৌদ্ধদের রেবতপ্রিয় মহাথের এর অন্তেষ্টিক্রিয়া ও মহাসম্মেলনে যোগ দেন সেতুমন্ত্রী।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ