চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

‘ক্লোজআপ কাছে আসার রিকশা’ ক্যাম্পেইন বন্ধে লিগ্যাল নোটিশ

প্রকাশ: ২০১৮-০২-১২ ১০:৩৩:০০ || আপডেট: ২০১৮-০২-১২ ১০:৩৩:০০

বিশ্ব ভালোবাসা দিবস বা ‘ভ্যালেন্টাইন্স ডে’ (১৪ ফেব্রুয়ারি) উপলক্ষে ক্লোজআপ আয়োজিত ‘কাছে আসার রিকশা’ ক্যাম্পেইন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সমালোচনা হচ্ছে। এবার এ ক্যাম্পেইন বন্ধ করতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হলো।

ইউনিলিভার বাংলাদেশসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি এ লিগ্যাল নোটিশটি পাঠিয়েছেন আওয়ামী ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ কাজী মাওলানা মুহম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী।

রোববার ওলামালীগ নেতার পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ রিদওয়ানুল করিম ডাক ও রেজিস্ট্রি যোগে এ লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন। নোটিশ পাঠানোর তথ্য আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ রিদওয়ানুল করিম নিজে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টা অর্থাৎ দুইদিনের মধ্যে এ বিষয়ে ইউনিলিভার বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অ্যান্ড ম্যানেজিং ডাইরেক্টর, স্বরাষ্ট্র সচিব, তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, পুলিশের মহাপরিচালক (আইজি) এবং ডিএমপি কমিশনারকে জবাব দিতে বলা হয়েছে। উল্লেখিত সময়ের মধ্যে জবাব না দিলে হাইকোর্টে রিট করা হবে।

লিগ্যাল নোটিশে বলা হয়, ক্লোজআপ আয়োজিত ‘কাছে আসার রিকশা’ ক্যাম্পেইনটি অশালীন, অনৈতিক ও বাংলাদেশের আইন পরিপন্হী। ৯০ শতাংশ মুসলমানের দেশে এ ধরনের ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক, অবাধ মেলামেশা, বেহায়াপনা ও অশালীনতাকে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

নোটিশে আরও বলা হয়, সাংবিধানিকভাবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। এই ধরনের অশালীন ও অনৈতিক কর্মকাণ্ড ইসলামের সম্পূর্ণ পরিপন্হী এবং সংবিধান অনুযায়ী কোনো মেয়ের পরিবারের সম্মানহানীর মতো কাজ করতে পারে না এ ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে।

আইনজীবী জানান, দণ্ডবিধির ২৯৪ ধারার বিধান অনুযায়ী, প্রকাশ্যে অশালীন কাজ করা নিষিদ্ধ। ডিএমপি অর্ডিন্যান্সের ৭৫ ধারায়ও প্রকাশ্য স্থান, রাস্তাঘাট ইত্যাদি জায়গায় অশালীন কাজ করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

তিনি আরও বলেন, নোটিশ পাওয়ার ২ কর্মদিবসের মধ্যে ইউনিলিভার এ ক্যাম্পেইনটি বন্ধ না করলে নোটিশদাতার পক্ষ থেকে আইনগত (মামলা) ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ