চট্টগ্রাম, , রোববার, ২২ এপ্রিল ২০১৮

৫৮ দিন পর কারাগারের বাইরে খালেদা

প্রকাশ: ২০১৮-০৪-০৭ ১৪:০৭:৪৯ || আপডেট: ২০১৮-০৪-০৭ ১৯:১৩:৫৭

দুর্নীতির মামলার রায়ে সাজা হওয়ার ৫৮ দিন কারাগারের চার দেয়ালের বাইরে এলেন বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকার পুরান কেন্দ্রীয় কারাগারেই ছিলেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী। এর মধ্যে তাকে জামিনে মুক্ত করতে আইনি লড়াই এখন অবধি সফল হয়নি। তবে শারীরিক অসুস্থতার কারণে তাকে বাইরে আনা হলো।

খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে গেঁটে বাত, হাঁটুর সমস্যাসহ বেশ কিছু রোগে ভুগছেন। গত ২৮ মার্চ অন্য একটি মামলায় আদালতে না নেয়ার পর তার অসুস্থতার বিষয়টি সামনে আসে এবং দুই তিন পর বিএনপির পক্ষ থেকে তাদের নেত্রীকে বিদেশে পাঠানোর দাবি জানানো হয়।

এর আগের দিন কারাগারে ঢাকার ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জনসহ তিন জন চিকিৎসক বিএনপি নেত্রীকে দেখে আসেন। আর গত ১ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসককে নিয়ে গঠন করা হয় মেডিকেল বোর্ড।

মেডিকেল বোর্ডের চিকিৎসাপত্র অনুযায়ী বিএপি নেত্রীকে ওষুধ দেয়া হলেও তিনি তা খাননি বলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে।

অন্যদিকে বিএনপি নেতারা তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসার জন্য আবেদন করে আসছেন। শুক্রবার বিকালেও খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের মাধ্যমে সরকারের কাছে এ আহ্বান জানান।

এর একদিন পরই খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসা করানোর জন্য নিয়ে আসলো সরকার।

শনিবার সকালে কড়া পুলিশি নিরাপত্তায় বিএনপি প্রধানকে নাজিমউদ্দিন রোডের কারাগার থেকে নিয়ে আসা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে। হাসপাতালের কেবিন ব্লকের ৫১২ নম্বর কক্ষে রেখে তার চিকিৎসা করানো হবে বলে জানা গেছে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা হয় বেগম খালেদা জিয়ার। পরে এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল হয় ২০ ফেব্রুয়ারি।

২২ ফেব্রুয়ারি আপিল গ্রহণের পর বিএনপি নেত্রীকে দেয়া দুই কোটি ১০ লাখ টাকা জরিমানার আদেশ স্থগিত করে হাইকোর্ট বেঞ্চ। আর ২৫ ফেব্রুয়ারি জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হলেও আদেশ দেয়া হয় ১২ মার্চ। সেদিন খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন দেয়া হলেও তার মুক্তি মেলেনি।

সাবেক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলার বাদী দুর্নীতি দমন কমিশন এবং রাষ্ট্রপক্ষ এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করে। আর আগামী ৮ মে এই আবেদনের ওপর শুনানি হবে।

অন্যদিকে দলীয় প্রধানকে মুক্ত করতে ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি। তাদের অভিযোগ সরকার রাজনীতি ও নির্বাচন থেকে দূরে রাখতে মিথ্যা মামলায় খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখেছে। এবং সরকারের নির্দেশে তার জামিন স্থগিত করে মুক্তিকে বিলম্বিত করা হচ্ছে।

যদিও সরকারের পক্ষ থেকে এমন অভিযোগ প্রত্যাখ্যাত করা হয়েছে শুরু থেকে। সরকারের কর্তাব্যক্তিদের দাবি, বিচার বিভাগ স্বাধীন। খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতের পেছনে তাদের কোনো হাত নেই।

আপনার মতামত দিন...

আপনার মতামত দিন...

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

Open

Close