চট্টগ্রাম, , শনিবার, ২৬ মে ২০১৮

কে এই শাহজাহান? তাঁর ইফতারী নিতে কেন এত ঢল?

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-১৫ ২৩:২৫:৪৪ || আপডেট: ২০১৮-০৫-১৬ ১৫:৩৬:০৩

জুনাইদ খাঁন 

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের গাটিয়াডেঙ্গা গ্রামে ইফতার সামগ্রী নিতে গিয়ে পদদলিত হয়ে সোমবার ৯ নারী নিহত হয়েছেন। এই নিয়ে দেশজুড়ে তোলপাড় চলছে।

কিন্তু আপনি কী জানেন, কেন এতগুলো মানুষ ইফতারি নিতে গেলো? আর কে এই শাহজাহান?

আসুন এক নজরে জেনে নিই শাহজাহান ও কবির গ্রুপ সম্পর্কে-

আপনি যদি সফল মানুষের সংজ্ঞা ও উদাহরণের খুঁজেন, তাহলে আপনার কাছে উদাহরণ হবেন কবির গ্রুপের এমডি শাহজাহান। বাংলাদেশের শীর্ষ শিল্প মালিকদের একজন তিনি। বর্তমান সরকারের বড় বড় উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে তাঁর হাতে গড়া প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম’র স্টিল ব্যবহার করা হচ্ছে।

নলুয়া ইউনিয়নের গাটিয়াডেঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা শাহজাহান চৌধুরী ১৯৮৪ সাল থেকে দক্ষতার সাথে ব্যবসা করে যাচ্ছেন। একক দক্ষতায় তিনি আজ সফলতায় চূড়ায় পৌঁছেছেন। বর্তমানে এদেশের সফল শিল্প-মালিক এবং নতুন উদ্যোক্ততাদের কাজে প্রেরণার গল্প হিসেবে চমৎকার উদাহরণ এই হাস্যোজ্জ্বল মানুষটি।

কিন্তু কেন উনি সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নের গাটিয়াডেঙ্গা গ্রামে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করতে গেলেন? এর উত্তর অনেকেই পেয়ে গেছেন।

বড় শিল্পপতি হয়েও তিনি নাড়ির টানি বাড়ি ফিরেন প্রতি রমজান-ঈদে। জন্মস্থানের মানুষদের দুহাত খুলে দান করেন। এতেই কী শেষ?

না, নিজের জন্মস্থানের মানুষদের তিনি কখনো খালি হাতে ফিরিয়ে দেননি। ইতোমধ্যে নলুয়া ইউনিয়নের শতাধিক রিক্সা চালককে তিনি রিক্সা কিনে দিয়েছেন। দরিদ্র অসহায়, যাদের থাকার ঘর নেই, এমন শতাধিক পরিবারকে তৈরি করে দিয়েছেন ঘর। পিঁছিয়ে পড়া এলাকার যুবকদের দিচ্ছেন চাকরি। প্রতি বছর টাকার অভাবে যেতে না পারা মানুষদের নিয়ে যান হজ্বে। এছাড়াও গরীব পরিবারের মেয়েদের বিয়ের সময় দেন দান করেন হাত ভরে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ সহ বিভিন্ন সময় এলাকার গরিব দুঃখী মানুষকে অকাতরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন কবির গ্রুপ তথা শাহজাহান।

এছাড়াও সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত উদ্যোগে সাধারণ মানুষের জন্য সাতকানিয়ার নলুয়া ইউনিয়নে স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা, ঈদগাহ, কবরস্থান স্থাপন করেছেন তিনি।

অনেকেই সোমবারের ঘটনায় অব্যবস্থাপনাকে দায়ী করছেন। আর এর জন্য শাহজাহান কিংবা কবির গ্রুপকে দায়ী করা হচ্ছে।

কিন্তু স্থানীয়রা বলছেন, পর্যাপ্ত স্বেচ্ছাসেবক ও আইনশৃংখলা বাহিনীর উপস্থিতিতে ইফতার সামগ্রীগুলো বিতরণ করা হচ্ছিল। তবে এত মানুষ ইফতার সামগ্রী নিতে আসবে, তা আয়োজকদের কল্পনায় ছিল না। দানবীর শাহজাহানের ইফতার সামগ্রী নিতে আশপাশে উপজেলা পেরিয়ে কক্সবাজার-বান্দরবান জেলা থেকেও মানুষ আসে। তাই আয়োজকরা সামাল দিতে হিমশিমে পড়ে যায়। অতঃপর ঘটে দুর্ঘটনা।

কিন্তু দানবীর শাহজাহান ও কবির গ্রুপ এই দায় নিজেদের কাঁধে তুলে নিয়েছে। এর মধ্যে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে তিন লাখ টাকা ও পরিবারের একজন চাকরি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। অসুস্থদের চিকিৎসার সার্বিক খরচও বহন করছে।

তবুও অনেকেই এই মানুষটার ঘাড়ে দায় চাপাচ্ছেন। আচ্ছা বলুন তো, এত বড় ব্যবসায়ী হয়েও নিজ গ্রামের গরীব দুস্থদের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা কী শাহজাহান সাহেবের দোষ?

তিনি চাইলে ইফতার সামগ্রী কিংবা টাকাগুলো বাইরের মসজিদ মাদ্রাসায় দিয়ে দিতে পারতেন। অথবা বর্তমানে যেখানে বসবাস করেন, সেখানকার বাসিন্দাদের মাঝে বিতরণ করতে পারতেন। কিন্তু সেটা তিনি করেননি। এলাকার মানুষদের পাশে দাড়াতে চেয়েছেন। সারাদিন রোযা রেখে মেহনতি মানুষগুলো মুখে তুলে দিতে চেয়ে একমুঠো ছোলা। টাকার অভাবে ঈদে নতুন কাপড় কিনতে না পারা মানুষদে মুখে হাসি ফুটাতে চেয়েছেন।

এখন আপনারা বলুন, দোষ কী আসলে শাহজাহান সাহেবের?

৬ Replies to “কে এই শাহজাহান? তাঁর ইফতারী নিতে কেন এত ঢল?”

  1. সাহাজান সাহেবের দোষ হবে কেন?তিনি সাহায্য করার জন্য এগিয়ে গিয়েছেন।কিন্তু আমরা বড় আত্বকেন্দ্রিক।কার আগে কে নিব,শেষে যদি না পাই এই ভয়ের কারনে আজকের এ দুঃখ জনক পরিনিতি।তাছাড়া কেউ কেউ একবার নেবার পরও আবার নেওয়ার চেষ্টা দুঃখজনক এ দূর্ঘটনার সৃষ্টি করেছে।

  2. খালি হাতে ফেরালেন কই, কাফনের কাপড়ও ধরিয়ে দিয়েছে। শালার সাহায্য যদি করতেই হয় ইহুদি-খ্রিষ্টান সাহায্য সংস্থার কাছ থেকে শিখে নিলেই পারে।

আপনার মতামত দিন...

Open

Close